পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার বিষয়টি স্বীকার করেছেন ইকবাল

পূজামণ্ডপে কোরআন শরীফ রেখে আসার ঘটনায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেনকে কক্সবাজার থেকে গ্রেপ্তারের পর কুমিল্লায় আনা হয়েছে। সেখানে তিনি পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

শুক্রবার ২২ অক্টোবর  কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সে আনা হয় ইকবালকে। এর আগে, বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত এলাকার সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার বিষয়টি ইকবাল স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এক কর্মকর্তা।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, মণ্ডপে কোরআন রাখার পর হনুমানের মূর্তি থেকে গদা সরিয়ে নেয়ার কথাও পুলিশকে জানিয়েছেন ইকবাল। তবে কার নির্দেশে এই কাজ করেছেন, তা এখনও জানাননি।

১৩ অক্টোবর কুমিল্লা মহানগরীর নানুয়ার দিঘিরপাড় পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা নিয়ে মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কুমিল্লার বিভিন্ন থানায় নয় মামলায় ৭৯১ জনকে আসামি করা হয়।

এরমধ্যে কোতোয়ালি মডেল থানায় পাঁচটি, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় দুটি এবং দাউদকান্দি ও দেবীদ্বার থানায় একটি করে মামলা হয়েছে। ৯১ জনের নাম উল্লেখ করে মামলায় ৭০০ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ৪৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সূত্র: কালের কণ্ঠ।

Source link

admin

Read Previous

করোনায় ১ লাখ ৮০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীর মৃত্যু: ডব্লিউএউচও

Read Next

শাহবাগ মোড় অবরোধ করে ফের বিক্ষোভ