মিয়ানমারে ৭৫ শিশুকে হত্যা করেছে জান্তা: জাতিসংঘ

মিয়ানমারে পাঁচ মাসের বেশি সময় আগের অভ্যুত্থানের পর থেকে এখন পর্যন্ত কয়েক ডজন শিশু হত্যা এবং আরও শত শত শিশুকে নির্বিচারে আটকে রাখা হয়েছে। শুক্রবার জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক বিশেষজ্ঞরা মিয়ানমারে সহিংসতায় শিশুদের প্রাণহানি এবং গ্রেফতারের ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছেন।

জাতিসংঘের শিশু অধিকারবিষয়ক কমিটি বলেছে, গত ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর মিয়ানমারে ৭৫ শিশুকে হত্যা এবং প্রায় ১ হাজার জনকে গ্রেফতারের বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পেয়েছেন তারা।

এক বিবৃতিতে কমিটির চেয়ারম্যান মিকিকো ওটানি বলেছেন, সামরিক অভ্যুত্থানের কারণে মিয়ানমারের শিশুরা অবরুদ্ধ দশা এবং প্রাণহানির বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয়েছে।

বেসামরিক নেত্রী অং সান সু চি নেতৃত্বাধীন সরকারকে উৎখাত করা অভ্যুত্থানের পর দেশটিতে গণ বিক্ষোভ-প্রতিবাদ অব্যাহত আছে। দেশটির সেনাবাহিনী বিক্ষোভকারীদের দমনে সহিংস উপায় বেছে নিয়েছে।

ওটানি বলেছেন, মিয়ানমারের শিশুরা প্রত্যেকদিন নির্বিচার সহিংসতা, এলোপাতাড়ি গুলি এবং গ্রেফতারের মুখোমুখি হয়েছে। শিশুদের দিকে বন্দুক তাক করা হচ্ছে এবং একই ধরনের ঘটনা শিশুরা তাদের বাবা-মা এবং আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গেও ঘটতে দেখছে।

জাতিসংঘের শিশু অধিকারবিষয়ক এই কমিটিতে নিরপেক্ষ ১৮ বিশেষজ্ঞ রয়েছেন; যারা শিশু অধিকারবিষয়ক জাতিসংঘের কনভেনশনের বাস্তবায়ন পর্যবেক্ষণ করেন। ১৯৯১ সালে মিয়ানমার জাতিসংঘের এই কনভেনশনে স্বাক্ষর করে।

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, তারা শিশুদের হত্যার ঘটনায় পুলিশ এবং জান্তার তীব্র নিন্দা জানায়। কিছু কিছু শিশুকে তাদের বাড়িতে হত্যা করা হয়েছে বলে এই বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিহত শিশুদের মধ্যে মিয়ানমারের মান্দালয় শহরের ৬ বছর বয়সী এক শিশুও রয়েছে; পুলিশ যার পেটে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছে। পুলিশ স্টেশন, কারাগার এবং সামরিক আটক কেন্দ্রে শিশুদের নির্বিচারে আটকে রাখারও নিন্দা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্র: এএফপি।

Source link

admin

Read Previous

মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করা প্রয়োজন

Read Next

কেশবপুরে শুভসংঘের উদ্যোগে ১৩০ পরিবার পেলেন ঈদ সামগ্রী